সর্বশেষ

গোয়াইনঘাটে অর্ধশত ছাড়লো আক্রান্তের সংখ্যা

গোয়াইনঘাটে করোনার ভয়াল থাবার বিস্তৃতি বেড়েই চলেছে। উপজেলায় স্বাস্থ্য পরিদর্শক নার্স শিশুসহ আরো আট জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হলেন ৫২ জন। ৮৩ দিনে নমুনা সংগ্রহ হয়েছে মাত্র ৩৯৭ জনের।

প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ জন অধ্যুষিত উপজেলার ৪টি ইউপিকে রেড জোন হিসাবে ঘোষনা করলেও নেয়া হচ্ছেনা সঠিক কোন পদক্ষেপ। সকল ক্ষেত্রে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। পজিটিভ রোগিরা অবাদে যেমন ঘুরে বেড়াচ্ছেন তেমনি নমুনা প্রদানের পর রিপোর্ট আসতে ১০/১২ দেরি হওয়ায় নমুনা প্রদানকারীরাও ঘুরে বেড়ান,পজিটিভ রোগীদের বাড়ির সদস্যরাও মানছেন না বিধিনিষেধ। দেশের আক্রান্ত এলাকার লোকজন গোয়াইনঘাটে অবাধে হাট বজারে বিচরণ রয়েছে অব্যাহত এমন অবস্থায় করোনার বিস্তার বেড়েই চলেছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায় ২৩ জুন আরো ৮ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে রয়েছেন স্বাস্থ্য পরিদর্শক নিখল চন্দ্র দাস, নার্স রুহানা গুলসান ওআদরী পরিচ্ছন্ন কর্মী ফয়ছল,মর্ডাণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হাতিরপাড়া গ্রামের মাসুক আহমদ,গুরকচি দ্বারিখাই গ্রামের শামীম আহমদ ও তার স্ত্রী সাবনাজ, ভেডীবিল গ্রামের ১৪বছরের শিশু হুসন আহমদ। এ পর্যন্ত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক, নার্সসহ ৮জন আক্রান্ত রয়েছেন। উপজেলায় মোট আক্রান্ত ৫২জন মৃত্যু হয়েছে ১জনের। ৩ এপ্রিল থেকে নমুনা সংগ্রহ শুরু হলে ২৪জুন পর্যন্ত মোট ৩৯৭জনের নমুনা সংগ্রহ হয়েছে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ঘটছে করোনার ভয়াল বিস্তার।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ