সর্বশেষ

‘নিরপরাধ’ যুবককে মামলা দেয়ায় পুলিশ কমিশনার বরাবরে অভিযোগ

সিলেট নগরীর ৫নং ওয়ার্ডের শাহী ঈদগাহ হুসনাবাদে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের খাদ্য ফান্ডের বরাদ্ধকৃত খাদ্য সামগ্রী কম দেয়ার অভিযোগ করায় মারধর করে স্থানীয় এক ছেলেকে থানাপুলিশে দেয়ায় পুলিশ কমিশনার বরাবরে অভিযোগ করেছেন শাহী ঈদগাহের বাসিন্দা দিলুয়ার হোসেন দিলু (দিলু গাজী)।
অভিযোগপত্রে তিনি উল্লেখ করেন, গত ৪ এপ্রিল স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা কালে সিটি কর্পোরেশনের বরাদ্ধকৃত খাদ্য সামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে ৪ কেজি চাল, আধা লিটার তেল, আধা কেজি পেঁয়াজ, আধা কেজি মটরের ডাল, এক কেজি আলু অর্থাৎ সিটি কর্পোরেশনের বরাদ্ধের খাদ্য সামগ্রী  প্রায় অর্ধেক বিতরণ করেছেন। এ অবস্থায় প্রতিবাদ জানালে কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ এয়ারপোর্ট থানাধীন আম্বরখানা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসিনকে খবর দিলে তিনি এসে স্থানীয় মুরুব্বিদের উপস্থিতি যুবক রনি গাজীকে ফাঁড়িতে নিয়ে আসেন। এরপর রনি গাজীকে ২০ ঘন্টা ফাঁড়িতে আটকে রাখেন। পরে এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এয়ারপোর্ট থানা আটকের পরদিন বিকেলে রনি গাজীকে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

অভিযোগে দিলুয়ার হোসেন আরো উল্লেখ করেন, ১৮ প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী লুণ্ঠন করে নিয়ে যাওয়ার মিথ্যে কাহিনী সাজিয়ে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-০৭, তারিখ-৫-৪-২০২০ইং।
দিলুয়ার হোসেন দিলু অভিযোগ করেন, প্রকৃত পক্ষে হুসনাবাদ এলাকায় কোনো লুটপাটের ঘটনা ঘটেনি। বরং কাউন্সিলর কর্তৃক সিসিকের খাদ্য ফান্ডের খাদ্য সামগ্রী আত্মসাতের প্রতিবাদ করা হয়েছিল।
হুসনাবাদের বাসিন্দা দিলুয়ার হোসেন দিলুর অভিযোগপত্রে স্থানীয় ১০০ জনেরও বেশি লোকের স্বাক্ষর রয়েছে, যাতে বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে সিলেট মেট্রোপলিট পুলিশ কমিশনারের প্রতি আবেদন জানানো হয়েছে।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ