সর্বশেষ

পুরুষ সেজে মেয়েকে প্রতিপালন করছেন এক নারী

৪১ বছর বয়সী ফারিন ইশতিয়াক। ২০১০ সালে পরিবারের অমতে ভালোবেসে ভিন্ন সম্প্রদায়ের একজনকে বিয়ে করেন। ফলে তাকে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। তিনি যখন গর্ভবতী, সেই মুহূর্তে স্বামীও তাকে ছেড়ে চলে যান। একাকী জীবন, পরিবার ও পরিজন ছাড়াই হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার মেয়ে রিদা জহরার জন্ম হয়। গলফ নিউজ

এর পরপরই অতীতের সব ভুলে মেয়েকে নিয়ে নতুন জীবন শুরু করেন তিনি। করাচি থেকে চলে আসেন লাহোরে। সেই থেকে জীবনযুদ্ধের লড়াই শুরু হয় তার।

লাহোর শহরের আনারকলি বাজারের ব্যস্ত রাস্তায় একটি ছোট্ট দোকান দিয়ে দেন তিনি। প্রতিদিন সকালে পুরুষের ছদ্দবেশে বেচাকেনার কাজ করেন। সকালে দোকান খোলার আগে উবারের বাইক চালিয়ে উপার্জন করেন। কাজের ক্ষেত্রে পথচারিদের কটু কথা, কু-দৃষ্টি ও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য পুরুষের ছদ্মবেশে জীবন ধারণ করেছেন তিনি। তার মেয়ে রিদার বয়স এখন নয়। মেয়েকে নিয়ে লাহোরে একটি হোস্টেলেই থাকেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ