সর্বশেষ

আবারও লাগামহীন পেঁয়াজের বাজার

 

আবারও লাগামহীন পেঁয়াজের বাজার। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের অধিকাংশ বাজারেই বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ২০ থেকে ৪০ টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে। ভারতীয় পেঁয়াজের আমদানি কমে যাওয়ায় দাম বৃদ্ধির এ ঘটনা ঘটেছে বলছেন ব্যবসায়ীরা। অনেকেই আবার দুষছেন অসাধু ব্যবসায়ীদের।

বাজার পরিস্থিতি নিয়ে সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বৃহস্পতিবারের (৭ অক্টোবর) সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, এক মাসের ব্যবধানে দেশি পেঁয়াজের দাম (খুচরা মূল্য) প্রায় ৫৮ শতাংশ বেড়েছে।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) একাত্তর সংবাদদাতাদের পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি ২০ থেকে ৪০ টাকা বেড়ে দেশের অধিকাংশ খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশী পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকায়।
রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি সাভারে পেঁয়াজের দাম এক সপ্তাহে বেড়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। এক্ষেত্রে বাজার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে উপজেলা নির্বাহী অফিস থেকে কোনো মনিটরিং করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।

রাজশাহীতে মাত্র পাঁচ দিনের ব্যবধানে কেজিতে ৩০ টাকা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। দাম বাড়ার কারণ হিসেবে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি আপাতত বন্ধ থাকায় বাজারে পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট তৈরির চেষ্টা করছে মজুতকারীরা। এজন্য দাম অনেকটা বেড়েছে।

সিলেটের বাজারেও চরা দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। পাশাপাশি বেড়েছে মশুর ডাল, আটা, তেল ও চিনির দাম। ৭০ টাকার মশুর ডাল বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকায়, ১৩০ টাকার সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৫৫ টাকায়, ৭০ টাকার চিনি বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। এছাড়া খুচরা বাজারে বেশকয়েকটি সবজির দাম বেড়েছে কেজিতে ১০ থেকে ১৫ টাকা করে। মূল্য বৃদ্ধির ব্যাপারে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি বিক্রেতারা।

চট্টগ্রামের খুচরা বাজারে ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজের কেজি প্রতি দাম বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকায়।

ফরিদপুরে পেঁয়াজের মূল্য কিছুটা অপরিবর্তিত রয়েছে। শুক্রবারও পাইকারী বাজার প্রকার ভেদে ৫৫ থেকে ৬২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে খুচরা বাজারে প্রতি কেজি ৬০ থেকে ৬৫ বা ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যা স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অনেকটাই বেশি

এদিকে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য বলছে, ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে ৩৩ লাখ ৬২ হাজার চারশ টন পেঁয়াজ উৎপাদন হয়। যা বার্ষিক চাহিদার চেয়েও ১০ লাখ টন বেশি। আবার সারাবছর ভারতসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানিও হচ্ছে।

 

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ