সর্বশেষ

দাবানলে ছারখার তুরস্ক ও লেবানন

 

ভয়াবহ দাবানলে পুড়েই চলেছে তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চল। দাবানলে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন তিনজন। তীব্র বাতাসে পুরো মানবগাত শহরে ছড়িয়ে পড়েছে আগুন। এরই মধ্যে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে শতাধিক মানুষকে।

এদিকে লেবাননেও দাবানলে মারা গেছেন একজন। আগুন নেভাতে কাজ করছে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

তীব্র গরম ও বাতাসে এখনও পুড়ছে তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলের মানবগাত শহরের বনাঞ্চল। এছাড়া আন্তালিয়া শহরের বেশ কয়েকটি গ্রামেও ছড়িয়ে পড়ে আগুন। নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

হেলিকপ্টার এবং উড়োজাহাজের মাধ্যমেও আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হচ্ছে। মানাওগাতের ৭৫ কিলোমিটার পূর্বে আন্তালিয়ার ১৮টি গ্রাম ও জেলা খালি করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া আডানা এবং মারসিন প্রদেশের আও ১৬টি গ্রাম থেকেও মানুষজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মানাওগাতের একটি হাসপাতালও খালি করা হয়েছে।

ভয়াবহ দাবানলে বেশ কয়েকজন হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাড়িঘর ও রাস্তাঘাট। এরই মধ্যে মানবগাতসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আগুনের কারণ এখনো জানা না গেলেও অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানায় তুর্কি কর্তৃপক্ষ।

তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলে ভূমধ্যসাগরীয় উপকূলে প্রচণ্ড তাপপ্রবাহের কারণে প্রায়ই দাবানল হয়। কর্মকর্তারা বলছেন, এবারে শুরু হওয়া দাবানল এ যাবৎকালের সবচেয়ে ভয়াবহ। উপকূলীয় পর্যটন এলাকার কাছে জ্বলছে দুটি দাবানল।

তুরস্কের কৃষিমন্ত্রী জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার থেকে তুরস্কের ১৩টি প্রদেশের ৪১টি স্থান দাবানলে পুড়ছে। এর মধ্যে ৩১টি স্থানে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে।

এদিকে পুড়ছে লেবাননের উত্তরাঞ্চলও। বাড়িঘর পুড়ে আহত হয়েছেন অনেকে। তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তবে বাতাসের তীব্রতায় আগুন নেভাতে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ