সর্বশেষ

ফাইজারের লক্ষাধিক টিকা দেশে আসছে ২ জুন

 

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আগামী ২ জুন ফাইজারের এক লাখ ৬ হাজার টিকা দেশে আসবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি। মঙ্গলবার (১৮ মে) রাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম প্রধান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জুনের ২ তারিখে গ্যাভির কোভ্যাক্স ফ্যাসিলিটি কর্তৃক ফাইজারের অন্তত এক লাখ ৬ হাজার কোভিড টিকা বাংলাদেশে পাঠাবে বলে আজ নিশ্চিত করা হয়েছে।
তবে এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, জুনের মধ্যে গ্যাভির কোভেক্স থেকে প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি ডোজ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ।

প্রসঙ্গত, টিকা সরবরাহ নিয়ে অনিশ্চয়তার কারণে সরকার গত ২৬ এপ্রিল থেকে প্রথম ডোজ বন্ধ করে দেয়। টিকা দেওয়ার অনলাইন নিবন্ধন প্রক্রিয়া বন্ধ আছে ৫ মে থেকে। এছাড়া রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও কুষ্টিয়া জেলায় টিকার স্বল্পতার কারণে দ্বিতীয় ডোজের কর্মসূচি স্থগিত রাখা হয়েছে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিটিউট বাংলাদেশের কেনা টিকার চালান পাঠাতে ব্যর্থ হওয়ার পর দেশব্যাপী সুশৃঙ্খলভাবে চলতে থাকা টিকাদান কর্মসূচি বিঘ্নিত হয়।
জানুয়ারি থেকে শুরু করে ছয় মাস ধরে প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ করে টিকা পাঠানোর কথা ছিল সেরামের। কিন্তু চুক্তি অনুযায়ী প্রথম ৫০ লাখ ডোজ পাঠায় সেরাম। ফেব্রুয়ারিতে তারা মাত্র ২০ লাখ ডোজ টিকা পাঠায়। এরপর থেকে আর কোনো চালান আসেনি বাংলাদেশে।
ইতোমধ্যে ভারত সরকার অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটানোর উদ্দেশ্যে টিকা রফতানির ওপর বিধিনিষেধ দিয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ