সর্বশেষ

নাট্যাঙ্গনের নামে হেলেনার মধুচক্র, পেশায় অভিনেত্রী কাজে নষ্টামি

নিউজ ডেস্কঃ  সিলেটের নাট্যাঙ্গন ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে কুলষিত করছে হেলেনা বেগম

নিউজ ডেস্কঃ হযরত শাহজালাল রহঃ ও শাহপরান রহঃ সহ তিনশত ষাট আউলিয়ার পুন্যভুমি সিলেট। আর এই পুন্যভুমি সিলেটের সাধারণ মানুষের মধ্যে রয়েছে ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীলতা।
অথচ এই পুন্যভুমি সিলেটে নাট্যাঙ্গনে রয়েছে কতিপয় নষ্টা ও নোংরা মানসিকতার নারী-পুরুষ। তাদের মধ্যে একজন হেলেনা। রাতারাতি সিলেটি নাটক ও মডেলিংয়ে যার অবাধ বিচরন আর পর্দার অন্ততরালে একটি নষ্টানারী।  ফেসবুক আইডি ( সোহানুর রাহমান এবাদ) নামের আইডি থেকে একটি ষ্ট্যাটার্সে প্রকাশ পায় হেলেনার আসল রূপ। বেরিয়ে আসে তার গোপন রূপ আর কু-কর্তি। এত নোংরা ও নষ্ট চরিত্রের নারীকে কিভাবে সুযোগ দেওয়া হয় সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তা নিয়ে নানান রকম মানুষের রয়েছে নানা প্রশ্ন।

সিলেটের নাট্য অঙ্গনের সুনাম নষ্ট করতে মরিয়া হয়ে উঠছে এক শ্রেনীর নষ্ট প্রকৃতির নারী-পুরুষ। এদের কে দেখতে অনেকটা ভদ্র মানুষের মত লাগলে ও পর্দার আড়ালে এরা যে কতটুকু জঘন্য তা কারো যানা ছিল না।
সিলেটের সাংস্কৃতিক ও সিলেটি নাটকের প্রতিটি চরিত্রে অভিনেত্রী হেলেনা বেগমের উপস্থিতি পরিলক্ষিত হচ্ছে।হেলনা জিন্দাবাজারস্থ পাঁচভাই রেষ্টুরেন্ট সংলগ্ন গলিতে একটি বাসা ভাড়া করেে থাকে রাত হলে তাহার বাসায় থাকে ছেলেদের আনাগোনা।লাইকির নামে চলে নষ্টামি রাতভর।

নানা রকমের নাটক ও মডেলিংয়ে রয়েছে হেলেনার একক আধিপত্য। এখন প্রশ্ন হলো কে এই হেলেনা বেগম? কি করে রাতারাতি এত নামযশ? তাহার চরিত্র কেমন? কিভাবে সে দিনের পর দিন এত বেপরোয়া হয়ে উঠছে? নাটক আর মডেলিং করে রাতারাতি এত সচ্ছলতা আসে কি করে?

এরই প্রেক্ষিতে গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকের একটি ষ্টেটার্সে বেরিয়ে আসে হেলেনা বেগম এর আসল রূপ। প্রকাশ পায় তাহার ও সোহানুর রাহমান এমাদের নষ্টামির কাহিনী। সামান্য সময়ের জন্য এই ফেসবুক ষ্ট্যাটার্সটি গায়েব হয়ে যায়। আসলে নাট্যকর্মীর আড়ালে হেলেনার এই রঙ্গমেলায় না জানি কত না যুবকের নাম রয়েছে তা অজানা। সিলেটের সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে কুলষিত করছে হেলেনা বেগম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ