সর্বশেষ

গোয়াইনঘাটে বন্যার পানি কমছে ধীর গতিতে
পানিবন্দী মানুষের অন্তহীন দুর্ভোগ

সিলেটের গোয়াইনঘাটে পানি কমছে ধীর গতিতে। ভেসে উঠা ঘরবাড়ির লোকজন চরম দুর্ভোগে রয়েছেন। কর্দমাক্ত ঘরবাড়িতে স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে দিন কাটছে তাদের। জ্বলছেনা উনুনে আগুন। মঙ্গলবারও স্থাপিত হয়নি যোগাযোগ ব্যবস্থা। ফসলের মাঠ এখনও নিমজ্জিত। দিনমজুররা বেকার।
গোয়াইনঘাটে গত ২৫ মে থেকে বন্যার শিকার হয়ে আসছে। কখনো কিছু অংশ ভাসছে আবার ডুবছে। একদিকে করোনা অপর দিকে বন্যার ছোবলে জনজীবনে নেমে এসেছে হতাশার অমানিশা। দফায় দফায় বন্যা ভেঙ্গে দিচ্ছে যোগাযোগ ব্যবস্থা, কেড়ে নিচ্ছে মাঠের ফসল, নষ্ট হচ্ছে বীজতলা। অগ্রহায়নের সোনার ফসল উৎপাদনের চেষ্টা নস্যাৎ করে দিচ্ছে পাহাড়ি ঢল। এখনও ৪ হাজারেরও বেশী হেক্টর জমি নিমজ্জিত রয়েছে।
বন্যা নিয়ন্ত্রনে স্থায়ী কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আশির দশক থেকে পিয়াইন নদী খননের দাবী হয়নি বাস্তবায়িত। অপরিকল্পিতভাবে রাস্তাঘাট, বাঁধ নির্মান করে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি আরো বাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে বলে সাধারনের অভিযোগ রয়েছে। বন্যার করাল গ্রাসে বারবার সংস্কার করা পিরিজপুর সোনারহাট হাট রাস্তার উনাই অংশ, গোয়াইনঘাট-রাধানগর রাস্তা বেহাল অবস্থায় পরিনত হয়েছে। সওজের গোয়াইন সারি রাস্তা অনেক স্থানে ভেঙ্গে গেছে। উপজেলার আভ্যন্তরীন অনেক রাস্তাঘাট এখনও নিমজ্জিত রয়েছে। কৃষকরা গো সম্পদ নিয়ে রয়েছেন বিপাকে। গো খাদ্যের তীব্র সঙ্কট বিরাজ করছে। বন্যায় ফি বছর ভেঙ্গে দিয়ে যায় কৃযকের পাজর। ফলে কৃষক থেকে দিনমজুরে নেমে আসতে হয় কৃষকদের। বন্যা আর করোনা মিলে মহাদুর্যোগে কাটছে মানুষের দিন।

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ