সর্বশেষ

ভয়াবহ বন্যার আশঙ্কা সুনামগঞ্জে

সুনামগঞ্জে পাহাড়ি ঢল ও প্রবল বর্ষণে বন্যা যেতে না যেতেই আবারও ভয়াবহ বন্যার সতর্ক সংকেত দিয়েছে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড। ফেইসবুক পেইজে এমন একটি সংবাদ আপলোড করেছেন সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সবিবুর রহমান। এমন খবরে জেলার হাওরাঞ্চল জুড়ে আবারো বন্যা আতংক দেখা দিয়েছে।

হাওরাঞ্চলের লোকজন জানান, আমরা অসহায়। প্রতিবারেই প্রকৃতির সাথে সংগ্রাম করে বেঁচে থাকতে হয়। আবারো বন্যা দেখা দিলে কোথায় গিয়ে আশ্রয় নেব। নিরাপদ আশ্রয়ের একটুখানি জায়গা নেই। তাদের ভরসা একমাত্র আল্লাহ ছাড়া কেউ নেই। গেল সপ্তাহে বন্যায় শহর গ্রামসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়। খামারিদের ৩ হাজার পুকুরের ২১ কোটি টাকার মাছ ভেসে যায় বানের পানিতে। ৩০০ কোটি টাকার সড়ক অবকাঠামোর ক্ষতি হয় এবং ৩ হাজার ২৬৫ হেক্টর জমির আউশ ধান ও বীজতলা পানিতে ডুবে নষ্ট হয়। এছাড়া হাওর এলাকার অসংখ্য কাঁচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়। বন্যার ধাক্কা সামলাতে না সামলাতেই আবারও অতিবৃষ্টি ও উজানের ঢলে নদনদীর পানি বেড়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত আশংকা করছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় শহরের ষোলঘর পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি সমতলের ৭ .৪৬ সেন্টিমিটার উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে এবং বিপদ সীমার ৩৪ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ১৩৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। অন্যদিকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শক্তিয়ারখলা পয়েন্টে যাদুকাটার নদীর পানি ৭.৭৮ সেন্টিমিটার উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে। যাদুকাটা নদীর পানি বিপদসীমার ২৭ সেন্টিমিটার নিচে প্রবাহিত হচ্ছে। সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সবিবুর রহমান জানান, আগামী ৫ দিন উজানে ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে মেঘালয় বেসিনে বৃষ্টিপাত হলে হাওর এলাকার নদনদীর পানি বাড়বে। নদনদীর পানি বিপদ সীমা অতিক্রম করে আবারো প্লাবিত হতে পারে।

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ