সর্বশেষ

বড়লেখা পিসি হাইস্কুলের ২০১৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে
বড়লেখায় ১৬০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা

বড়লেখা উপজেলার সীমান্তবর্তী দুর্গম গ্রাম বোবারথল। এ গ্রামের বাসিন্দা আলিম বেগম (৫০)। প্রায় ২ বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন, নেই কোন ছেলে সন্তান নেই। ৪ মেয়ের ২ জনকে বিয়ে দিয়েছেন।

স্বামীর মৃত্যুর পর পাড়া-প্রতিবেশীর সহায়তায় ২ মেয়েকে নিয়ে টেনেটুনে চলছিল তার সংসার। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সংকটে পড়েন আলিম বেগম। কারণ আগের মত পাড়া-প্রতিবেশীর কাছ থেকে তিনি আর সহায়তা পাচ্ছেন না। তাই ২ মেয়েকে নিয়ে চরম কষ্টে কাটাতে হচ্ছে।

আলিম বেগমের দুরবস্থার কথা জানতে পেরে কয়েকজন শিক্ষার্থী তার বাড়িতে চাল, ডাল, আলু, ছোলা, পেঁয়াজ, তেল, লবণ, মরিচ, হলুদ ও সাবান নিয়ে হাজির হন। খাদ্যসামগ্রী পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি।

আলিম বেগমের মত এরকম ১৬০ পরিবারকে খুঁজে তাদের খাদ্য সহায়তা দিয়েছে ‘প্রজেক্ট হাসিমুখ’ নামে বড়লেখা পিসি মডেল হাইস্কুলের ২০১৩ ব্যাচের ৩০ জন প্রাক্তন শিক্ষার্থী। মঙ্গল ও বুধবার দিনভর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ১৬০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছে তারা। পাশাপাশি কয়েকটি পরিবারকে অর্থ সহায়তাও দিয়েছে।

জানা গেছে, বড়লেখা পিসি মডেল হাইস্কুলের ২০১৩ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ফেসবুকে একটি গ্রুপ রয়েছে। সেই গ্রুপে তারা গত ১১ জুন করোনাভাইরাসে সংকটে পড়া মানুষের জন্য কি করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করেন।

এরপর তারা অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। যার নাম দেন ‘প্রজেক্ট হাসিমুখ’। গত ১১ জুন থেকে ২০ জুন তারা প্রায় দেড়লাখ টাকা সংগ্রহ করেন। এরপর ২ দিনে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের অসহায় পরিবারকে খুঁজে তাদের খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন। প্রত্যেক পরিবারকে ১২ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ৩ কেজি আলু, ১ কেজি ছোলা, ২ কেজি পেঁয়াজ, ১লিটার তেল, ১ কেজি লবন, মরিচ, হলুদ ও সাবান দেয়া হয়েছে।

প্রাক্তন শিক্ষার্থী নয়ন ইসলাম ও আসিফ মোক্তাদির জানান, ‘ফেসবুক গ্রুপে আমরা হঠাৎ করে আলোচনা করে করোনাভাইরাসে সংকটে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিই। এরপর দেশ-বিদেশে থাকা সব বন্ধুরা মিলে মাত্র ৯ দিনে দেড়লাখ টাকা সংগ্রহ করেছি। অনেকের আত্মীয়-স্বজন টাকা দিয়ে সহায়তা করেছেন। সবাই যে এত দ্রুত সাড়া দেবেন তা কল্পনা করিনি। দুর্দিনে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে ভালো লাগছে। সবার উচিত এসব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। তাহলে মানুষ আর না খেয়ে থাকবে না।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ