সর্বশেষ

কমলগঞ্জে শ্মশানঘাট ও পুকুর দখলের অভিযোগ

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামে শ্মশানঘাট ও পুকুর জবর দখলের পর শ্মশানঘাটের বাঁশ, গাছ, পুকুরের মাছ লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিবাদ জানালে জবরদখলকারী মারধোরের হুমকি প্রদান করেন। রোববার বেলা ১২ ঘটিকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
রিপন চন্দ্র দেবনাথসহ স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, আমরা বংশ পরস্পরায় সোনাপুর গ্রামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে বসবাস করে আসছি। আমাদের শ্মশানঘাটখানাও বংশ পরস্পরায় শেষকৃত্য সম্পাদন করে আসছি। তবে পার্শ্ববর্তী সারঙ্গপুর গ্রামের বিল্লাল মিয়া (৪৫) ও গোবিন্দপুর গ্রামের রায়হান মিয়া (২৫) মিলিত হয়ে শ্মশানঘাট ও পুকুর অবৈধভাবে দখল করে তাদের নিজেদের বলে দাবি করছে। এই শ্মশানঘাটের বাঁশ, গাছ ও পুকুরের মাছও তাদের দাবি করে নিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, রোববার এসব ঘটনায় আপত্তি জানালে দখলকারীরা মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। বিষয়টি স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ও জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় রিপন চন্দ্র দেবনাথ বাদি হয়ে রোববার দুইজনকে অভিযুক্ত করে কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আনজির হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে অভিযুক্ত বিল্লাল মিয়া ওই জায়গা তাঁর নিজের এবং কাউকে হুমকি ধামকি প্রদান করেননি বলে দাবি করেন।
এ ব্যাপারে শমশেরনগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. জুয়েল আহমেদ বলেন, জবর দখলের অভিযোগ পেয়েছি। শ্মশানঘাটে ভূমি জবরদখল কোন মতেই সঠিক নয়। ইতিপূর্বেও বিল্লাল মিয়া শ্মশানঘাট দখলের চেষ্টা চালায়। এ ব্যাপারে সামাজিকভাবে সমাধান না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ওসি (তদন্ত) অরুপ কুমার চৌধুরী বলেন, এ ব্যাপারে তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ