সর্বশেষ

মাধবপুরে ৪৯ বছর পর স্বীকৃতি পেলেন বীর মুক্তিযুদ্ধা মরহুম খুর্শেদ আলী চৌধুরী

 

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় ৬নং শাহজাহানপুর ইউনিয়নে সুরমা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম খুর্শেদ আলী চৌধুরী ৪৯ বছর পর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন।

জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ৬৬তম সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বেসামরিক বাংলাদেশ গেজেট অতিরিক্ত ২০ মে ২০২০ইংরেজী, ক্রমিক নং ২১৯৫ লিস্টে মরহুম খুর্শেদ আলী চৌধুরী নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেন। তার দুই ছেলে ফয়সল আলম চৌধুরী ও কাউসার আলম চৌধুরী।

তিনি ০৩ নম্বর সেক্টর এর যোদ্ধা ছিলেন। ওনার আরো আপন দুই ভাই, বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন । একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ রফিকুল আলম চৌধুরী, এবং অন্যজন বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শফিকুল হোসাইন চৌধুরী। মরহুম খুর্শেদ আলম চৌধুরী ১৯৭১ সালে সংগঠিত মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন অন্যতম সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। মরহুম খুর্শেদ আলম চৌধুরী মাধবপুর থানা আওয়ামী লীগের একজন সিনিয়র নেতা ছিলেন এবং ১৯৯৬ সালের ৪ সেপ্টেম্বর শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৯৭১ সালের ৪ এপ্রিল মাধবপুর থানাধীন তেলিয়াপাড়া চা বাগানের অন্তর্ভুক্ত বাঁশবাড়িতে অবস্থিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন মুক্তিবাহিনীর আনুষ্ঠানিক প্রথম সদরদপ্তরে মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক কর্ণেল (অবঃ) আতাউল গণি ওসমানীর নেতৃত্বে সেনা অফিসার ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে মুক্তিযুদ্ধের প্রথম পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযুদ্ধের একজন অন্যতম পরিকল্পনাকারী হিসাবে যার নাম তেলিয়াপাড়া চা বাগানের বাঁশবাড়িতে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতিসৌধের পাদ তলে অংকিত রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় পুরাতন রাস্তাঘাটের সংস্কার, নতুন রাস্তাঘাট তৈরি, মুক্তিযোদ্ধাদের রসিদ সরবরাহ, আহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসার সুবন্দোবস্ত করাসহ বিভিন্ন কাজে পুরো মুক্তিযুদ্ধকালীন সময় তিনি নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন।

কাউসার আলম চৌধুরী বলেন, বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মানবতার মা, দেশরত্ন শেখ হাসিনার আদেশে পুনরায় বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হয়। যার ধারাবাহিকতায় আমার বাবা সহ দেশের আরও ১২৫৬ জন বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধা মুক্তিযুদ্ধের সনদ প্রাপ্ত হন। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আমার পরিবারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। । দোয়া করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আরও উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে আর পৃথিবীর মানচিত্রে দেশকে নিয়ে যাবেন এক অনন্য উচ্চতায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ