সর্বশেষ

মাধবপুরে পাহাড়ি ঢলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

 

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট পাহাড়ি ঢলে বেশ কয়েকটি গ্রামের বাড়িঘর ও কৃষি জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গত কয়েকদিনের বৃষ্টির ফলে পাহাড়ি ছড়া (নদী) গুলো দিয়ে অতিরিক্ত পানি প্রবাহিত হচ্ছিল।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সন্ধ্যা থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত টানা ভারী বৃষ্টির ফলে তেলানিয়াছড়া, সিমনাছড়াসহ কয়েকটি পাহাড়ি নদীর পানি বেড়ে আশপাশের বাড়িঘর, কৃষিজমি ও পুকুর তলিয়ে যায়।

শাহজাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তৌফিক আলম চৌধুরী জানান, পাহাড়ি ঢলে মানুষের ঘরবাড়ি, জমি ও পুকুর মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং রাস্তাঘাট ভেঙ্গে গেছে। পানিতে সব ভেসে যাওয়ায় অনেক পরিবারের সকালের খাবারের মত কোন কিছু নেই। আমি তাৎক্ষণিক-ভাবে তাদের সকালের ও দুপুরের খাবারের ব্যবস্থাও করেছি এবং চেষ্টা করছি সরকারি ভাবে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার জন্য।

জগদীশপুর ইউনিয়নের বরধলিয়া গ্রামের এস এম মুক্তি জানান, পাহাড়ি ঢলে তেলানিয়া নদীর বাঁধ ভেঙ্গে বরধলিয়া গ্রামের রাস্তাঘাট, পুকুর ও বাড়িঘর ডুবে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। জগদীশপুর তেমুনিয়া থেকে ইটাখোলা রাস্তার বড়ধলিয়া গ্রামের ভেতরের কিছু অংশ ভেঙ্গে গেছে।
তিনি আরও বলেন, অনেকে সরকারি খাল দখল করে দোকান পাট করেছে। জগদিশপুর তেমুনিয়া বাজারের নতুন একটা ব্রিজ করা হয়েছে কিন্তু সেই ব্রিজের পানি যাওয়ার কোন রাস্তা নেই। তেমুনিয়া বাজারের পানি নিষ্কাশনের রাস্তা বন্ধ করে ঘরবাড়ি করা হয়েছে। সেই জন্য পাহাড়ি ঢালে আগের চেয়ে অনেক বিশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

শাহজাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবুল খায়ের জানান, পাহাড়ি ঢলে শাহজাহানপুর ইউনিয়নের ৬ টি ওয়ার্ডের আনুমানিক ২৫০ টি বাড়িঘর ও প্রায় ৩ শত একর কৃষি জমির সবজি নষ্ট হয়ে গেছে। এছাড়া এসব এলাকার অনেক পুকুর তলিয়ে যাওয়ায় সব মাছ ভেসে গেছে। তবে আগেই ধান কাটা শেষ হয়ে যাওয়ায় ধানের জমি পানিতে তলিয়ে গেলেও কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তবে অনেক সবজি চাষি ও মৎস্য খামারি পুঁজি হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ