সর্বশেষ

চীনের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি ট্রাম্পের

প্রথমে বাণিজ্য চুক্তি এবং পরে করোনাভাইরাসকে কেন্দ্র করে চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। এ অবস্থায় বেইজিংয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বৃহস্পতিবার সম্প্রচারিত ফক্স বিজনেস টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে আলোচনায় তার কোনো আগ্রহ নেই এবং দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা করতে পারে ওয়াশিংটন।

ট্রাম্প বলেন, জানুয়ারি মাসে চীনের সঙ্গে তার যে চুক্তি হয়েছিল সেই চুক্তি ঠিকমতো রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে বেইজিং। আবারো একই ঘটনা ঘটতে দেয়া ঠিক হবে না।

ট্রাম্প বলেন, ‘আমার সঙ্গে খুবই ভালো সম্পর্ক, তবে এই মুহূর্তে চীনের প্রেসিডেন্ট জিনপিংয়ের সঙ্গে কথা বলতে চাই না।’

ট্রাম্পের অভিযোগ, চীনের ল্যাব থেকেই বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা মহামারি। একাধিকবার যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের বহু দেশ চীনের কাছে উহানের ল্যাবরেটরিতে গিয়ে করোনা ভাইরাসের উৎস সম্পর্কে তদন্তের অনুমতি চেয়েছে। তবে তাতে রাজি হয়নি চীন।

এ প্রসঙ্গ উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা যেতে চাইলে তারা মুখের ওপর না করে দিয়েছে। আমাদের সাহায্য চাই না। আমার মনে হয়েছে সেটা ঠিক আছে। কারণ তারা নিশ্চয় জানে তারা কি করছে। এটা হয় বোকামো, নয় ইচ্ছাকৃত।’

এদিকে চীনা এসোসিয়েশন অফ ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড এর বিশেষজ্ঞ কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান লি ইয়ং বলেন, তার দেশ এখনো আশা করে বাণিজ্যের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র রাজনীতিকীকরণ করবে না। কেননা এতে কোনও পক্ষের মঙ্গল হবে না।

দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে বাণিজ্য নিয়ে টানাপড়েন চলছে এবং দু পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক বাড়তি বাণিজ্য শূল্ক আরোপ করেছে। পরে অবশ্য দু দেশের মধ্যে এ নিয়ে একটি চুক্তি হয়েছে। তারপরও পরস্পরের প্রতি সন্দেহ যায়নি বেইজিং ও ওয়াশিংটনের এবং বর্তমানে স্বস্তিতে নেই দুই পক্ষের কেউই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ