সর্বশেষ

করোনাতঙ্কে ট্রাম্প!

মহামারি করোনার প্রতিনিয়ত বিধ্বংসি রূপ দেখেই চলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যা পৌঁছেছে হোয়াইট হাউজ পর্যন্ত। এতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যক্তিগত সহকারী।

আর এতেই উদ্বিগ্ন ট্রাম্প করিয়েছেন দ্বিতীয়বারের মতো করোনা পরীক্ষা। যা এখন থেকে প্রতিদিনই করবেন বলে জানিয়েছেন স্বয়ং নিজেই।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার ওভাল অফিস থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, ‘সাবধানতার জন্য এখন থেকে প্রতিদিনই স্বাস্থ্য ও করোনা পরীক্ষা করাবেন তিনি। করোনা শনাক্তে সহকারীর দেহে আগের দফা পরীক্ষা ও যে পরীক্ষায় ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে তার মধ্যে অনেক দিনের ব্যবধান ছিল।’

আক্রান্ত এ সহকারী যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সদস্য। তার সঙ্গে মেলামেশার পরিমাণ খুবই কম ছিল বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এসময় পরিস্থিতিকে খানিকটা অদ্ভূত বলেও অভিহিত করেন ট্রাম্প।

এছাড়া, সাংবাদিকদের সঙ্গে কথোপকথনে মহামারী মোকাবেলায় মার্কিনিদের লড়াকু মনোভাবেরও প্রশংসা করেন তিনি।

এদিকে, হোয়াইট হাউজের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, ‘কোভিড-১৯ থেকে সুরক্ষা নিশ্চিতে ব্যাপক ও ধারাবাহিক পরীক্ষার উপরও জোর দেবে যুক্তরাষ্ট্র। পরীক্ষা করা হলেও এখন পর্যন্ত কেবল ট্রাম্পই নয়, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের শরীরেও করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

ট্রাম্পের ব্যক্তিগত এই কর্মকর্তা মূলত প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্ট লেডির কাজ করে থাকেন। তাদের জন্য খাবার, কাপড় ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস যোগান দেন। এছাড়া ট্রাম্পের দেশ ও দেশের বাইরের যাত্রাতেও তাদের সঙ্গে থাকেন।

দেশটিতে বাংলাদেশ সময় আজ শুক্রবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত ওয়ার্ল্ডওমিটারের দেয়া তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯ হাজার ৫৩১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ১২ লাখ ৯২ হাজার ৬৬৩ জনে পৌঁছেছে। প্রাণহানি ঘটেছে আরও ২ হাজার ১২৯ জনের। ফলে, মোট মৃতের সংখ্যা ৭৬ হাজার ৯২৮ জনে দাঁড়িয়েছে। যা যেকোনো দেশের তুলনায় সর্বোচ্চ।

এদিকে, আগামী সোমবার থেকে স্কুলগুলোতে ক্লাস শুরু হতে যাচ্ছে ফ্রান্সে। তবে ১৫ জনের বেশি শিক্ষার্থী ক্লাসে অংশ নিতে পারবে না। অস্ট্রেলিয়াকে নতুন করে চালু করতে তিন ধাপের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তবে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়েছে ভারত ও পাকিস্তানে।

আর আফ্রিকায় প্রায় দুই লাখ মানুষ করোনায় প্রাণ হারাতে পারেন বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ঊনচল্লিশ লাখের বেশি মানুষ। প্রাণ হারিয়েছেন দুই লাখ সত্তর হাজার ছাড়িয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ