সর্বশেষ

ইনাতগঞ্জ বাজারে দুঃসাহসিক চুরি

মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রভাবে রাস্তা-ঘাট এখন নিস্তব্ধ ভূতুরী বাড়ীতে পরিনিত হয়ে পড়েছে। এই সুযোগের সৎ ব্যবহার করল একদল চোর। নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ পশ্চিম বাজারে গভীর রাতে একটি দোকানে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে নগদ সাড়ে তিন লক্ষ্য টাকাসহ প্রায় ৫ লক্ষ্য টাকার মালামাল চুরি করে পালিয়েছে ।বাজারের পাহাড়াদারও ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ি থাকা সত্ত্বেও কেউ কিছু টেরই পায়নি।
গতকাল ভোর রাতে ইনাতগঞ্জ বাজারে রজত ভেরাইটিজ ষ্টোরে এ ঘটনাটি ঘটে।জানাযায় রাতের আধারে পিছন দিকের তালা ভেঙ্গে একদল চুর দোকানে প্রবেশ করে। ইনাতগঞ্জ বাজারের রজত ভেরাইটিজ স্টোরের মালিক রজত কান্তি রায় গত ৩মে (রবিবার)প্রতিদিনের মত সন্ধায় দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যান। সোমবার সকালে এসে দোকান খুলে এলোমেলো অবস্থা দেখে তার সন্দেহ হয়। তাৎক্ষণিকভাবে দোকানে থাকা টাকার সিন্দুকের খুজ করেন এবং সিন্দুক দেখতে না পেয়ে তার বুঝার আর বাকি রইলো না।সাথে সাথে পাশের ব্যবসায়ী হরিপদ রায় ও তার ছোট ভাই রাজিবকে ফোন করে কান্না করতে থাকেন।তখন স্থানীয় কয়েকজন এগিয়ে আসে এরিমধ্যে তার ছোটভাই দোকানে পৌঁছে ইনাতগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি দিলবার হোসেনকে বিষয় সম্পর্কে অবগত করলে তাৎক্ষণিকভাবে রজত ভেরাইটিজ স্টোর এসে রজত কান্তি রায় ও তার ছোট ভাইকে শান্তনা দিয়ে বিষয়টি কথিয়ে দেখবেন বলেন।পরে দোকান তল্লাশি করে জানাযায় গত রাতে দোকানের পিছনের দরজার ভেন্টিলেটর ভেঙে চুরের দল ভিতরে আসে। এবং দোকানে থাকা সন্দুকের তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনার খবর পেয়ে ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ইমরান আহমেদ দোকান পরিদর্শন করে আমাদেরকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। এতে বাজারে ব্যবসায়ীদের মধ্যে চোর আতংক বিরাজ করছে। ইদানিংকালে ইনাতগঞ্জ শহরসহ আশ পাশের গ্রামগুলো চুরির উপদ্রব বৃদ্দি পেয়েছে।

এ ব্যাপারের ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ইমরান আহমেদ বলেন, চুরির ঘটনায় এখনও কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি তবে লিখিত অভিযোগ পেলে খোজ খবর নিয়ে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহন করব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ