সর্বশেষ

প্রথম রোজা পালনের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করলেন মার্কিন গায়িকা মেরি

একজন আলজেরীয় মুসলিমকে বিয়ে করার বিশ বছর পরে গত গ্রীষ্মে ইসলাম গ্রহণ করেন মার্কিন গায়িকা মেরি ক্যাথরিন ফোর্ড। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব সত্ত্বেও নিয়মিত রোজা পালন করছেন তিনি।-আল জাজিরা
এই মার্কিন গায়িকা আল জাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের প্রথম রোজা রাখার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, ইসলাম গ্রহণের পরে আমার প্রাত্যহিক জীবনে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আমাকে শৃঙ্খলিত করে। চলতি রমজান আমার জীবনে প্রথম রোজা পালনের সুযোগ করে দিয়েছে। যদিও করোনার কারণে এ বছরের রোজা প্রতিটি মুসলমানের কাছেই হাজির হয়েছে একটু ভিন্নরূপে। তারপরও পরিবারের সঙ্গে অত্যন্ত প্রশান্তি ও নিরাপদেই পবিত্র রমজান মাস অতিবাহিত করছি।
তিনি বলেন, আলজেরীয় এক মুসলিম যুবকের সঙ্গে আমি বিশ বছর আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হই। সেই থেকে স্বামী এবং পরবর্তীতে আমার মুসলমান সন্তানদের সঙ্গে রমজান মাস কাটিয়েছি। পরিবারের সদস্যরা রোজা রাখলেও আমি রাখতাম না। তবে এখন মুসলিম হওয়ার পরে রমজান ও রোজাকে ভিন্নভাবে অনুভব করছি। এককথায়, ইসলাম গ্রহণের পরে সবকিছুই আমার নিকট অন্যরকম লাগছে।
এই গায়িকা বলেন, আমি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বসবাস করি। আর যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে এই নিউইয়র্কে। এজন্য শহরটিতে এ বছরের রমজানের অভিজ্ঞতা যেকোনও সময়ের তুলনায় ভিন্ন, ঘর ছেড়ে বাইরে বের হতে পারছি না মোটেও।
তিনি আরও বলেন, আমি বলব, বস্তুত ইসলাম আমার সত্ত্বায় আস্তে আস্তে ঢুকে পড়েছে। গত গ্রীষ্মে যখন স্বামীর সঙ্গে আলজেরিয়ায় ছিলাম, একদিন ফজরের আজানের ধ্বনি আমার কানে বেজে ওঠে। আমি অনুভব করি, স্বতন্ত্র একজন ব্যক্তি হিসেবে আমাকে নামাজের জন্য আহবান করা হচ্ছে। এবং বুঝতে পারি, আসলে ইসলামই শান্তির ধর্ম। অতঃপর আমি সম্পূর্ণভাবে ইসলামে প্রবেশ করি। অনেকে বলছেন আমি করোনার ভয়ে ইসলামে দীক্ষিত হয়েছি- ব্যাপারটি সম্পূর্ণ মিথ্যে। আমি মুসলিম হয়েছি গত গ্রীষ্মে। করোনা মহামারির সঙ্গে আমার ইসলাম গ্রহণের কোন যোগসূত্র নেই।
তিনি আরও বলেন, এটা ঠিক যে, করোনা যখন গোটা বিশ্বকে ভীত সন্ত্রস্ত করে তুলেছে, তখন প্রতি মুহূর্তে ইসলামিক বিধান নামাজ-রোজা আমার হৃদয়ে প্রশান্তি ও স্থিরতার দুর্দান্ত উৎস।একইসঙ্গে ইসলাম আমার অগোছালো জীবনে ভারসাম্য ফিরিয়ে এনেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ