সর্বশেষ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু ৬৫ হাজার ছাড়াল

বিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ৬৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে, যা এককভাবে কোনো দেশে সর্বোচ্চ। এ ছাড়া দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও বিশ্বে সর্বোচ্চ, যা এরই মধ্যে ১১ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।
ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাব মতে শনিবার (২ মে) সকাল পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩৪ লাখ ১ হাজার ১৮৯ জনের শরীরে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত পাওয়া গেছে যুক্তরাষ্ট্রে, দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৬৫ হাজার ৭৬৬ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন ১১ লাখ ৩১ হাজার ২৮০ জন।
শনিবার (২ মে) সকাল ৯টা পর্যন্ত এ সংখ্যা নিশ্চিত করেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার।
এখন পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ লাখ ৩৯ হাজার ৫৬২ জন। বিশ্বের মোট মৃত্যুর ১ চতুর্থাংশের বেশিই হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে।
জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় করোনাভাইরাস নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সবশেষ তথ্যে জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শুক্রবার রাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মহামারি এ ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৮৮৩ জনের। অবশ্য এ সংখ্যা আগের তিন দিনের তুলনায় বেশ কম। বৃহস্পতিবার দেশটিতে মৃত্যু ছিল ২ হাজার ৫৩ জনের। বুধবার মৃত্যু হয়েছিল ২ হাজার ৫০২ জনের, মঙ্গলবার ২ হাজার ২০৭ জনের।
যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। সবচেয়ে বিপর্যস্ত নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য। অন্যান্য অঙ্গরাজ্যের চেয়ে সেখানেই আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।
নিউইয়র্কে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ১৫ হাজার ২২২ এবং মারা গেছে ২৪ হাজার ৬৯ জন। এরপরেই রয়েছে নিউ জার্সি। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ২১ হাজার ১৯০ এবং মৃত্যু ৭ হাজার ৫৩৮।
অপরদিকে ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৪ হাজার ৩১১ এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৭১৫ জনের, ইলিনয়েসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ হাজার ২৬৫ এবং মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৪৫৭ জনের।
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ হাজার ১৯৭। ওই অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২ হাজার ১৩৪ জন।
বিশ্বজুড়ে আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০ লাখ ৮১ হাজার ৫৯৯ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ২০ লাখ ৭৯ হাজার ৬৩৮ জন। এদের মধ্যে ২০ লাখ ২৮ হাজার ২৮৩ জনের শরীরে মৃদু সংক্রমণ থাকলেও ৫১ হাজার ৩৫৫ জনের অবস্থা গুরুতর।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ