সর্বশেষ

জকিগঞ্জে চাল-কাণ্ডে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

জকিগঞ্জে ১০ টাকা দামের সরকারি চাল আত্মসাতের ঘটনায় ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা।

রবিবার রাতেই উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা বাদী হয়ে জকিগঞ্জ থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি দায়ের করেন।

চালকান্ডের ঘটনায় মামলায় আসামী করা হয়েছে, আটক মিলার শফিক আহমদ, খাসেরা গ্রামের মৃত ফয়জুর রহমানের ছেলে কালিগঞ্জ বাজারের ডিলার জয়নাল আহমদ, উত্তর আইয়র (মনতলা) গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে কসকনকপুর গ্রামের ডিলার আব্দুল মুকিত, বারঠাকুরী ইউনিয়নের ডিলার আব্দুল আজিজ, কসকনকপুর গ্রামের আছদ্দর আলীর ছেলে ট্রাক চালক কামরুল ইসলাম, বারগাত্তা গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে ও ট্রাক হেলপার সইফ উদ্দিনকে এবং চাল হরিলুটের ঘটনায় নগরকান্দি গ্রামের আব্দুল ওয়াহিদের ছেলে দেলোয়ার হোসেন ও দেওয়ানেরচক গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে বিপ্লব আহমদকে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সকালের দিকে কালিগঞ্জ বাজারে ১০ টাকা দরের ৫৭০ বস্তা চাল আতৎসাতকালে চালভর্তি ট্রাক আটক করে স্থানীয় জনতা।

পরে ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চালভর্তি ট্রাকে লুটপাট করা হয়। এ ঘটনায় জকিগঞ্জ থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক দুজন ডিলার, একজন ট্রাক চালক ও এক হেলপার এবং চাল লুটপাটে জড়িত সন্দেহে দুজন যুবকসহ মোট ৬ জনকে আটক করেছে। পরে কৌশলে সিলেটের মিলার শফিক আহমদকেও আটক করা হয়।

আটককৃত সবাইকে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় গ্রেফতার দেখাবে পুলিশ। মামলা রেকর্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জকিগঞ্জ থানার ওসি মীর মো. আব্দুন নাসের।
জানা গেছে, রবিবার সকাল ১১টার দিকে কালিগঞ্জ বাজারের হোসেন এন্ড সন্সের সামনে ট্রাক থামিয়ে ১০ টাকা দরের ৩০ কেজি ওজনের চালের বস্তা নামানোর সময় স্থানীয় জনতার সন্দেহ হয়।

তখন ট্রাক চালককে চাল নামানোর বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে চালক জানায় চালগুলো কালিগঞ্জের দুই ব্যবসায়ীর। তারপর স্থানীয় জনতা ট্রাক চালকের কাছে চালের সরকারি কাগজপত্র দেখতে চাইলে সে তাৎক্ষনিক কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। তখন ট্রাকসহ চাল আটক করে প্রশাসনকে খবর দেন স্থানীয়রা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ