সর্বশেষ

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি
বাদুড়ের মাধ্যমেই ছড়িয়েছে করোনা

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বাদুড়ের মাধ্যমেই ছড়িয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। একইসঙ্গে চীনের একটি সামরিক জীবাণু অস্ত্র গবেষণাগার থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার যে অভিযোগ বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে উঠেছিল তা নাকচ করেছে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, হাতে আসা সমস্ত প্রমাণাদি বিশ্লেষণ করে তারা জানতে পেরেছে, জৈব গবেষণাগার নয় বাদুড়ের মাধ্যমেই এর উৎপত্তি।- খবর রয়টার্স।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, জাতিসংঘের এই অঙ্গ সংস্থার এক মুখপাত্র আজ এই তথ্য জানিয়েছেন। তবে চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল করোনাভাইরাস হলো তাদের তৈরি একটি জীবাণু অস্ত্র। অস্ত্রের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য সাধারণের মধ্যে জীবাণু ছেড়ে দিয়েছে চীন কর্তৃপক্ষ। তারপরই তা গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। এই বিতর্কে শামিল আছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহেই তিনি বলেছেন, চীনের মধ্যাঞ্চলের হুবেই প্রদেশের সরকারি গবেষোগার থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি কিনা তা খতিয়ে দেখছে তার প্রশাসন। তবে অনেকে তার এমন দাবিকে চীনের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্র তত্ত্ব’ হিসেবে অভিহিত করছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র ফেডেলা শায়েব জেনেভায় এক নিউজ ব্রিফিংয়ে বলেন, প্রাপ্ত সব প্রমাণাদি অনুযায়ী ভাইরাসটি প্রাণী থেকেই মানুষে ছড়িয়েছে। এটা কোনো গবেষণাগারে তৈরি কিংবা সেখান থেকে ছড়িয়ে দেয়া হয়নি। সম্ভবত এই ভাইরাস বাদুড় থেকেই বিস্তার লাভ করেছে।

তবে প্রাণী থেকে কীভাবে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এমনটা নিশ্চিত হওয়া না গেলেও এটা অবশ্যম্ভাবী যে ভাইরাসটির উৎপত্তি প্রাণী থেকে হয়েছে। আর মানুষ ও ভাইরাসের মধ্যে করোনার বিস্তারের যোগসূত্র হিসেবে কাজ করেছে অন্য কোনো প্রাণী।

করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার জানিয়েছে, বর্তমানে মোট ২৫ লাখ ৯৯৩ জন লোক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার ৬৯৩ জনের। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬ লাখ ৫৮ হাজার ১১৪ জন।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে সর্বপ্রথম শনাক্ত হয় এই ভাইরাস। এরপর খুব দ্রুতই সেটি গোটা চীন ও সেখান থেকে পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে এটি বিশ্বের ২১০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।

আক্রান্ত ও মৃত উভয় সংখ্যার দিক থেকেই বিশ্বে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৭ লাখ ৯২ হাজার ৯৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪২ হাজার ৫১৮ জনের।

মৃতের হিসাবে তালিকার দ্বিতীয়তে রয়েছে ইতালি। তবে ইউরোপ মহাদেশে শীর্ষে রয়েছে তারা। দেশটিতে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ১১৪ জনের। আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৮১ হাজার ২২৮ জন।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্পেন। দেশটিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২১ হাজার ২৮২ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৪ হাজার ১৭৮ জন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ