সর্বশেষ

ইতালিতে বৈধতা পাচ্ছেন ৬ লাখ অভিবাসী

 

ইতালিতে খুব শীঘ্রই প্রায় ছয় লাখ অবৈধ অভিবাসীকে বৈধ করে নেয়া হতে পারে। ইতিমধ্যে দেশটির মন্ত্রীপরিষদে এনিয়ে আলোচনা সম্পন্ন হয়েছে। করোনাভাইরাসের মধ্যে গেল ১৮ এপ্রিল ইতালি সরকার ঘোষণা করেছে প্রায় ৬ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে বৈধতা দেয়ার প্রক্রিয়ার ঘোষণা খুব শিগগিরই আসবে। এ কারণে ইতোমধ্যে ১৬ পৃষ্ঠার একটি খসড়া আইন প্রস্তুত করেছে ইতালি সরকার।

খসড়া আইনে বলা হয়েছে ইতালির কৃষি, মৎস্য, পর্যটনসহ অন্যান্য কাজের অগ্রাধিকার দিয়ে কাজের চুক্তির মাধ্যমে কাগজ দেয়া হবে। প্রথমে মালিকপক্ষ তার কর্মীকে এক বছরের জন্য চুক্তিতে রাখবে।
ইতালি সরকারের সকল প্রক্রিয়া অনুসরণ করলে চুক্তির মেয়াদ বাড়াবে এবং এই প্রক্রিয়ায় নির্দিষ্ট কর্ম মেয়াদের চুক্তিতে অবৈধ অভিবাসী কর্মীদেরকে ইতালি সরকার বৈধতা দিবে। ইতালিতে একবার বৈধ হতে পারলে আর সহজে কেউ অবৈধ হন না।

বিশ্লেষরা মনে করছেন, ইতালির অর্থনীতিকে গতিশীল করতে এই পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। সরকার ও প্রশাসনকে সাহায্য করে চুক্তি অনুযায়ী থাকার মাধ্যমে দেশটির অর্থনীতি চাঙা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আর এ কারণে দেশটিতে অভিবাসীদের বৈধতা দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, শ্রমিকদের হতে মাসে গড়ে ৭০০ ইউরো কর ও ইমস পাবে ইতালি সরকার। দেশটির নিয়োগ কর্তারা এই কর প্রদান করবেন, কিন্তু শ্রমিকের বেতন সঠিক থাকবে। এই কর ও ইমস্ এর টাকা হতে শ্রমিকের ভবিষ্যৎ পেনশন দেওয়া হয়, বেকার ভাতাও দেওয়া হয়। এই অর্থ দিয়ে সকলের জন্য পেনশন নিশ্চিত করে সরকার ।

এ ব্যাপারে ইতালির শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে ‘করোনা’ সংকটকালের বিশেষ বিবেচনায় ইতালি সরকার অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা দেবার এই প্রক্রিয়ার খসড়া আইন খুব শীঘ্রই পার্লামেন্টে উপস্থাপন করে পাশ করবে।

এই ঘোষণায় ইতালিতে বিপুল সংখ্যক অবৈধ অভিবাসীর সাথে হাজার হাজার বাংলাদেশিসহ প্রায় ৬ লাখ অবৈধ অভিবাসীর মুখে হাসি ফুটলো। বর্তমানে দেশটিতে কতজন অবৈধ বাংলাদেশি রয়েছে তার সঠিক হিসেব নেই। তবে ধারণা করা হচ্ছে, প্রায় ৬০ হাজার অবৈধ বাঙালী রয়েছেন। তারা দীর্ঘ সময় ধরে পরিবার থেকে দূরে রয়েছেন। বৈধ কাগজপত্রের জন্য নিজ দেশে যেতে পারছেন না।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ ২০১৩ সালে ইতালিয়ান সরকার ঘোষণা দিয়ে সকল অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ করে নিয়েছিল।

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ