সর্বশেষ

নবীগঞ্জ থানার ওসি যেন একজন যোদ্ধা

নবীগঞ্জে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবেলায় জনগণের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিজের জীবন বাজি রেখে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বেশ ক’টি মোড়ে জনসচেতনতার নেতৃত্ব দেন নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজিজুর রহমান।জীবনযুদ্ধে আপসহীন সাহসী সৈনিক অকুতোভয় যোদ্ধা ওসি মো. আজিজুর রহমান। মাঠে-প্রান্তরে ছুটে চলা এক বীর।রাত দিন চলছে তো চলছেই।এ চলা নবীগঞ্জের জনগণের কল্যাণে এক নিবেদিত যাত্রা।মৃত্যুর মিছিলে কাঁপছে পুরো বিশ্ব। ভয় আর আতঙ্ক নিয়ে চতুর্দিকে ছুটোছুটি। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়ানো এই ব্যক্তিটি আর কেউ নয়, তিনি নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. আজিজুর রহমান।জনগণের উদ্দেশ্যে অনুরোধ প্রকাশ করে প্রতিটি মোড়ে মোড়ে ওসি আজিজুর রহমান বলেন, আপনারা নিজে বাঁচুন,অন্যকে বাঁচাতে আপনাদের সহযোগিতা একান্ত কাম্য।১৯৭১ সালের যুদ্ধ ছিল ঘর থেকে বের হয়ে পাকিস্তানি হানদার বাহিনীকে পরাস্ত করা।২০২০ সালের যুদ্ধটা হলো করোনা নামক সংক্রমণব্যাধি থেকে ঘরবন্দি হয়ে নিজেকে রক্ষা করা।আর এটা মুক্তিযুদ্ধের মতো জীবন বাজির কোনো ঘটনা নয়। সচেতনতাই এ ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র পথ। আসুন, সকলে মিলে এ প্রতিরোধযাত্রায় সুর তুলি, ঐক্যবদ্ধভাবে ঘরে বসে যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করি। আমরা সচেতন হলে আল্লাহ আমাদের হেফাজত করবেন।ওসি আজিজুর রহমান জানান, জীবন মানেই যুদ্ধ। যুদ্ধে টিকে থাকার চেয়ে কঠিন হলো মানসিক শক্তিতে নিজেকে শক্ত রাখা। আর সেই যুদ্ধের সাথে আমরা লড়াই করছি। আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করবেন। তবে আমাদের সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। প্রতিদিন পৌর সদরসহ প্রতিটি ইউনিয়নে গণজমায়েত বন্ধ করতে পুলিশি টহল জোরদার করা হচ্ছে। আমি নিজে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে খেয়ে না-খেয়ে কোনোমতো সময় পার করছি।তবু আমি দায়িত্বের সাথে কোনো রকম আপস করতে রাজি নই।নবীগঞ্জ উপজেলাকে একটি সুন্দর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উপহার দেওয়াই আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যে। তবে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে সকল স্তরের ব্যক্তিদের করোনা সংক্রমণ মোকাবেলায় সচেতনমহলের ভূমিকার কোনো বিকল্প নেই বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ