সর্বশেষ

তাহিরপুরে ইউএনও’র হাতে খাদ্য সহায়তা পেয়ে স্বস্থিতে বাড়ি ফিরলেন ভিক্ষুক প্রতিবন্ধীরা!

ইউএনও’র হাতে খাদ্য সহায়তা পেয়ে স্বস্থিতে নিজ নিজ বাড়ি ফিরলেন বৈশ্বিক মহামারী করেনাভাইরাসে সারা দেশের ন্যায় বিপর্যস্থ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের ভিক্ষুক ও প্রতিবন্ধীরা।
সোমবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী (ইউএনও) ৪নং বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে বাদাঘাট ও উওর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার অর্ধ শতাধিক ভিক্ষুক ও প্রতিবন্ধীর হাতে হাতে সরকারি খাদ্য সহায়তা হিসাবে চাল,ডাল, তৈল,আলু,পেয়াজ,লবনসহ খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেন।
উপজেলার বারহাল গ্রামের শতবর্ষী বৃদ্ধা ভিক্ষুক মল্লিকা বানু খাদ্য সহায়তা পেয়ে প্রায় বাক্যরুদ্ধ হয়ে বলছেলিন,আগের মত চলতে ফিরতে পারিনা ,আজ (সোমবার) উনার (ইউএনও) সাবের হাত থেকে সরকারের দেয়া পইলা (প্রথম) খাবার দাবার পেয়ে স্বস্থিতে বাড়ি ফিরছি,বুঝলাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (হাসিনা সরকার) থাকলে আমরার মত মানুষের না খেয়ে থাহন (থাকা) লাগত না।
উপজেলার দিঘিরপাড়ের শারিরীক প্রতিবন্ধী (পঙ্গু) রফিক মিয়া বললেন, দেশে এই সময় গাঁও গেরামের বাড়ি ঘর,বাজারের দোকান পাট প্রায় সময়ই বন্ধ থাকে, মানুষের দরজায় দরজায় ঘুরে ভিক্ষার চাল আর লোকের দেয়ায় দান খয়রাতের টাকায় জি-পুত (ছেলে মেয়ে) নিয়া কোন রকম আমরার মত মানুষ পেঠের ভাত জোগার করতাম কিন্তু এই কয়দিন ঘরের চুলা জ্বলেনি। আজ তাইন (ইউএনও) সাহেব বিশেষ ভাবে আমরার খোঁজ খবর নিয়া আমরা হাতে হাতে খাদ্য সহায়তা দেয়ায় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে বাড়ি ফিরছি, এ সরকার আমাদের ভাতের অভাবে মরতে দেবেন না।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় আমাদের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ মহোদয় চলমান বৈশ্বিক মহামারী করেনাভাইরাসে গৃহে থাকা প্রত্যেক ভিক্ষুক,প্রতিবন্ধী ও নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌছাতে আন্তরিক রয়েছেন,এ ধরণের মানুষজনের জন্য সরকারি খাদ্য সহায়তা অব্যাহত থাকবে।
খাদ্য সহায়তা বিতরণকালে উপজেলার দুই ইউনিযনের জনপ্রতিনিধি, পুলিশ সদস্য সদস্য, ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক, গ্রাম পুলিশ, সুধীজন, যুগান্তর স্বজন সমাবেশে’র সদস্য ও সাংবাদিকগণ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ