সর্বশেষ

মাজেদের লাশ দাফন করতে না দেওয়ার হুঁশিয়ারি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকারী বরখাস্তকৃত ক্যাপ্টেন আবদুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর লাশ তার গ্রামের বাড়ি ভোলার বোরহানউদ্দিনে দাফন করতে দেবে না ছাত্রলীগ।

শনিবার (১১ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটার দিকে বোরহানউদ্দিন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মুজিব উল্যাহ পলাশ বিশ্বাসের যৌথ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি মাজেদের লাশ বোরহানউদ্দিনে প্রবেশ করলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বোরহানউদ্দিন শাখার নেতাকর্মীরা তা প্রতিহত করবে। মাজেদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর জাতি কলঙ্কমুক্ত হবে। কিন্তু তার লাশ বোরহানউদ্দিনের মাটিতে দাফন করে আমরা মাটিকে কলঙ্কিত করতে দেবো না।’
এদিকে ভোলা-২ (বোরহানউদ্দিন-দৌলতখান) আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে লিখেছন, ভোলার মাটিতে মাজেদকে দাফন করতে দেওয়া হবে না।

উল্লেখ্য, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত পলাতক আসামি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদ ২৫ বছর ধরে ভারতে পালিয়ে ছিলেন বলে জানায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। তারা জানায়, করোনাভাইরাস আতঙ্কে সেখান থেকে গত ২৬ মার্চ ময়মনসিংহ সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন তিনি। দেশে ফেরার গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গত ৬ এপ্রিল মধ্যরাতে রাজধানীর মিরপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি। এরপর তাকে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। সরকার তার ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া নিয়ে কাজ করছে। তবে মাজেদ রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছেন। তার বাড়ি ভোলায়।

50% LikesVS
50% Dislikes
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ