সর্বশেষ

হোম কোয়ারেন্টিন নয়, নবীগঞ্জে সালিশ দেখতেই ছিল ভিড়

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এক দম্পতির হোম কোয়ারেন্টিন দেখতে জনতার ভিড়ের যে ছবি ভাইরাল হয়েছিল সেটার ব্যাপারে জানা গেছে অন্য তথ্য। সেখানে পারিবারিক দ্বন্দ্বের বিচার সালিশ দেখতেই ভিড় করেছিলেন স্থানীয়রা।

শুক্রবার (২০ মার্চ) দুপুরে ঘটনাস্থলে যান নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল। পরে তিনি এ তথ্য জানান।

সূত্র জানায়, জেলার নবীগঞ্জ পৌর শহরের গুয়াউড়ি গ্রামের অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এক দম্পতি সম্প্রতি দেশে ফেরেন। কিন্তু দেশে ফেরার পর ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে ধনঞ্জয় দেব তার স্ত্রীর পাসপোর্টসহ সব কাগজপত্র নিয়ে নেন। এরপর তিনি স্ত্রীকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে নিজে আত্মীয়ের বাড়িতে চলে যান। কিন্তু বৃহস্পতিবার ধনঞ্জয় দেবের স্ত্রী তার বাবাকে নিয়ে পাসপোর্ট নিতে স্বামীর বাড়িতে যান। এ সময় একটি সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তাই উৎসুক জনতা বাড়িতে ভিড় জমায়। ভিড়ের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। কোয়ারেন্টিন দেখতে জনতার ভিড় বলে প্রচারিত হলে দেশজুড়ে আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল জানান, বাড়িতে আসার পর প্রবাসীকে কোথাও ঘুরতে নিষেধ ও কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়ে আসা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান বলেন, ‘স্বামী স্ত্রীর দ্বন্দ্বের সালিশ দেখতেই ভিড় করেছিল স্থানীয় কয়েকজন। করোনা ভাইরাসের কোয়ারেন্টিন দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় উল্লেখ করে যে ছবি প্রকাশ করা হয়েছে সেটি মিথ্যা।’

নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ছাবির আহমেদ বলেন, ‘তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। তাই বিষয়টি সালিশের মাধ্যমে আমরা সমাধান করে দিই। কিন্তু এ বিষয়টিকে নিয়ে ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচারিত হয়েছে।’ সূত্র- বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ