সর্বশেষ

দেশে করোনায় নতুন কেউ আক্রান্ত হয়নি

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে দেশে নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি। তাই কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত তিনজনই রয়েছে বলে জানিয়েছেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) মহাপরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

আজ সোমবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে আইইডিসিআর কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

আইইডিসিআর মহাপরিচালক বলেন, ‘বাংলাদেশে রোববার তিনজনের সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়ার পর হটলাইনে ৫০৯টি ফোন পেয়েছি। এর মধ্যে ৪৪৯টি করোনা সংক্রান্ত। পরে চারজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে তাদের কারও শরীরেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়নি।’

বিদেশ ফেরতদের বাড়িতে ১৪দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘বিদেশ থেকে কেউ এলে অবশ্যই বাড়িতে অন্তত দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এ সময় ওই ব্যক্তি বাড়ির বাহিরে বেরিয়ে এদিক-সেদিক ঘোরাফেরা করলে প্রতিবেশীদের স্মরণ করিয়ে দিতে হবে যে, তিনি কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তিনি যেন বাসাতেই থাকেন।’

বিদেশ ফেরতদের সঙ্গে বিরূপ আচরণ না করারও অনুরোধ জানিয়ে এ চিকিৎসক বলেন, ‘আক্রান্ত রোগী আছে, কিন্তু আতংকিত হবার কোনো কারণ নেই। ছড়িয়ে পড়ার কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। তাই অযথা মাস্ক ব্যবহার না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং জনবহুল এলাকা এড়িয়ে চলুন।’

সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘উপজেলা পর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খালা হচ্ছে, সেখানেও হটলাইন নম্বর খোলা হবে। কোভিড-নাইনটিন রোগে চীনের অবস্থা উন্নত হচ্ছে কিন্তু, একশ ছয়টি দেশের সাথে যুক্ত হয়েছে আরও ৮টি দেশ। আক্রান্ত যারা হয়েছেন,  এই মানুষগুলো যাদের সংস্পর্শে এসেছেন, তাদেরও তালিকাও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।’

সামাজিকভাবে যাতে হেয় না হয় সে জন্য করোনায় আক্রান্ত রোগীদের ব্যক্তিগত তথ্য ও পরিচয় বাইরে প্রচার না করার অনুরোধ জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এ প্রতিনিধি জানান, ‘বিশ্ব বাস্তবতায় রোগটির সংক্রমণ অস্বাভাবিক নয়। প্রতিরোধে সবাইকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে, সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এ মহাপরিচালক জানান, ‘অবহেলা করার কোন সুযোগ নেই। লক্ষণ প্রকাশ পেলে বাড়িতে বিচ্ছিন্ন থেকে আইইডিসিআর এর সাথে যোগাযোগ করুন।’

এদিকে শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘ছয় দেশ থেকে কেউ ফিরলে তাকে অবশ্যই ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখতে হবে। দেশগুলো হচ্ছে- চীন, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর, ইরান ও থাইল্যান্ড।’

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। রোববার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা জানান, ধরা পড়া করোনা রোগী দুজন ইতালিফেরত। তিনজনের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী। সরকার ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ